[PRT,TGT,PGT] আদেশনামা ঘিরে ধন্দ কর্মী-শিবিরে ,মিলবে বর্ধিত বেতন সঠিক সময়ে ?

This Post Contents

মূল রোপা প্রকাশিত হয়েছে,সঙ্গে ডিপার্টমেন্ট এর রোপা প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু রাজ্য সরকারি কর্মীদের অপশন ফর্ম জমা নিয়ে কাজ শুরু হয়ে গেলেও,সেটা সঠিক সময়ে শেষ হবে কিনা সেই নিয়ে ধন্দ শুরু হয়েছে। সম্প্রতি রাজ্য সরকার অপশন ফর্ম এর জমা দেওয়ার তারিখ 24 শে ডিসেম্বর থেকে বাড়িয়ে 15 ই জানুয়ারি অব্দি বাড়ানো হয়েছে। সেই নিয়ে কর্মচারীদের মনে সংশয় সৃষ্টি হয়েছে।কারণ 15 তারিখে অপশন জমা করে জানুয়ারি মাসের শেষ অথবা ফেব্রুয়ারি মাসের শুরুতে কি মিলবে পে কমিশন অনুসারে বর্ধিত বেতন সেটাই এখন দেখার ।

যদিও কর্মচারীদের মনে সংশয় সৃষ্টি হলেও অর্থ দপ্তর নিশ্চিত যে, বর্ধিত বেতন জানুয়ারি মাস থেকেই মিলবে। কারণ এখন বেশির ভাগ কাজই এখন অনলাইনে হয় , ইন্টিগ্রেটেড ফিনান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ বা আইএফএমএস এর মাধ্যমে, ফলে নিৰ্দিষ্ট সময়ে এই কাজ সম্পন্ন হবে এবং বর্ধিত বেতন সঠিক সময়ে মিলবে।

যদি কোনও কারণে দেরি হয় তাহলে খুব বেশি হলে এক মাসের এরিয়ার হতে পারে(যার সম্ভাবনা কম) ।

অপর দিকে ডিপার্টমেন্ট এর রোপা প্রকাশিত হচ্ছে। যেমন শিক্ষা দপ্তরের রোপা গত ডিসেম্বরে মাসের 13 তারিখে প্রকাশিত হয়েছে। লক্ষ্য করলে দেখা যাবে সেখানে একাধিক পরিবর্তন করা হয়েছে। পরিবর্তন করা হয়েছে গ্রেড পে এবং পে বেন্ড এর । ফলে তার জন্য নতুন রেক্টিফিকেসন দরকার। অপর দিকে প্রাথমিক শিক্ষকদের গ্রেড পে 2300 এবং 2600 ছিল সেটা পে বেন্ড 2 তে ছিল ,যেটা 2019 শিক্ষক রোপায় পে বেন্ড 3 করা হয়েছে,কিন্তু পে মেট্রিক্স এর কোনও পরিবর্তন করা হয় নি। ফলে সেই কোনও রেক্টিফিকেসন এখনও আসেনি।সেটা কবে আসবে সেই নিয়ে এখন অপেক্ষারত প্রাথমিক শিক্ষকরা।

গ্রাজুয়েট শিক্ষকদের মামলা চলছে কোর্টে তাঁদের tgt scale প্রদান নিয়ে। যদিও যে শিক্ষক রোপা 2019 প্রকাশিত হয়েছে, সেখানে tgt scale নিয়ে কোনও কিছু উল্লেখ নেয়। কোর্ট পে কমিশনকে নিজের মতামত স্পষ্ট করতে বলেছে পরের শুনানিতে ,কোর্টে। যদিও তাঁদের গ্রেড পে বৃদ্ধি হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল ,কিন্তু সেটা কত হবে সেটা এখনও পরিস্কার নয়।

2019 শিক্ষক রোপায় 4100 গ্রেড পে কে পে বেন্ড 4 এ আনা হলেও 4800 কে পে বেন্ড 4A করা হয়েছে। কিন্তু পে মেট্রিক্স এর কিছু পরিবর্তন করা হয়নি ফেলে সেই নিয়ে কবে শিক্ষক রোপার রেক্টিফিকেসন বেরিয়ে আসবে তার অপেক্ষায় সমস্ত শিক্ষকরা।

যদিও জানা যাচ্ছে যে,রেক্টিফিকেসন জানুয়ারি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে বের হতে পারে ,ফলে অপশন দিতে হয়তোবা শিক্ষকদের একটু দেরি হলেও হতে পারে । কিন্তু এখন যেহেতু অনলাইনে,

ইন্টিগ্রেটেড ফিনান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ বা আইএফএমএস ,এর মাধ্যম অপশন দিতে হবে,ফলে মনে করা হচ্ছে সমস্ত কর্মচারীদের বেতন বৃদ্ধি সঠিক সময়ে সম্ভব হবে !!!

___________________________________

Click here, 6th pay commission salary calculator

Click here,for 6th pay commission news

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here