শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে প্রশ্ন মূখ্যমন্ত্রীকে,কবে শুরু হবে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া ?

mamata-banerjee
mamata-banerjee

শিক্ষক নিয়োগ আর তার সঙ্গে কোর্টে মামলা দুটি বিষয় এখন ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে। যেখানে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে সেখানে তার বিরুদ্ধে বিস্তর অনিয়মের অভিযোগ তুলে হয়েছে একাধিক মামলা।

KOLKATA-HIGH-COURT
KOLKATA-HIGH-COURT

প্রাথমিক থেকে শুরু করে উচ্চ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ এখনও পরে রয়েছে একাধিক মামলা । ফলে বার বার শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া আটকে যাচ্ছে মামলার জালে।

Screenshot 20190819 140551 com.facebook.katana e1566440287683mamata banerjee said about teachers recruitment 
বুধবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার প্রশাসনিক বৈঠকে দলেরই এক নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির এই প্রশ্নের মুখে পড়তে হল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সেখানেই উঠে আসে চাঞ্চল্যকর প্রশ্ন৷ হলদিয়া জেলা পরিষদের কর্মদক্ষ তথা বিধানসভার পরাজিত প্রার্থী মধুরিমা মণ্ডল মুখ্যমন্ত্রীকে জানান, ‘‘আমাদের রাজ্যজুড়ে একটা বড় সমস্যা রয়েছে৷ স্কুল সার্ভিসের মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগ বন্ধ৷ যদি কিছু করেন৷’’

এর জবাবে মূখ্যমন্ত্রী জানান যে,‘‘এইগুলি আমি কিছু জানি না৷ যা বলার পার্থর সঙ্গে কথা বলবেন৷ আমার পক্ষে দেখা সম্ভব নয়৷ এগুলি আমি দেখি না৷ ইন্ডিভিজুয়াল, ইন্ডিভিজুয়াল মামলা৷ হাইকোর্টের সব মামলা করে রেখে দিয়েছে৷’’

কিছু দিন আগেই শিক্ষামন্ত্রী জানিয়ে ছিলেন যে একাধিক মামলা জন্য শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া ধমকে রয়েছে। উচ্চ মাধ্যমিক এবং মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জন্য শিক্ষক নিয়োগ প্রায় সম্পন্ন হলেও।এখন উচ্চ প্রাথমিকে একাধিক মামলা রয়েছে। আজ তার মধ্যে একটা মামলার শুনানি ও আছে। আবার প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ 2017 সম্পন্ন হবার পরও সেই নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে একাধিক অভিযোগ রয়েছে।যেমন প্রশ্ন ভুল মামলা, প্রশ্ন out মামলা প্রভৃতি। ফলে নতুন পরীক্ষা পরে রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। ইতিমধ্যেই কিছু মামলা নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ রায় দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। তাহলেও পরে রয়েছে একাধিক মামলা।

আরও পড়ুন – প্রাথমিকে ভুল প্রশ্ন মামলার  বসির আমহেদ কেসের কোর্টের অর্ডার কপি

আরও পড়ুন : প্রতিভা মণ্ডলের  প্রাথমিকে ভুল প্রশ্নও মামলার খবর

 

কিছুদিন আগে থেকেই যেসমস্ত আপডেট বেরিয়ে আসছে তাতে মনে করা হচ্ছে যে পূজোর পরে শিক্ষক নিয়োগের নোটিফিকেশন জারি হতে পারে!!

আরও পড়ুন – প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ কবে ? পুজোর পরেই কি প্রাথমিকে টেট !

 

ফলে এটা স্পষ্ট যে মামলার জন্য আটকে রয়েছে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া।