Day and night different electricity rates: দিন ও রাতের জন্য ভিন্ন বিদ্যুৎ মাশুল! ছাড় মিলবে অতিরিক্ত প্রায় 20 শতাংশ! very big news

0
53

Day and night different electricity rates: বদলে যাচ্ছে বিদ্যুৎ বিলের নিয়ম। দিনে ইলেকট্রিক বিল আসবে কম এবং রাতে বেশি! কয়েক মাসের মধ্যেই নতুন নিয়ম আনছে কেন্দ্র সরকার!বিদ্যুৎ সংকট কাটাতে এই নয়া পরিকল্পনা বলে কেন্দ্রীয় সরকারের বিদ্যুৎ মন্ত্রী জানিয়েছেন। দিন ও রাতের জন্য ভিন্ন ভিন্ন (Day and night different electricity rates) বিদ্যুৎ মাশুলের ভাবনা কেন্দ্রের! এর ফলে এখন থেকে দিনে ব্যবহার করা বিলে ছাড় মিলবে অতিরিক্ত প্রায় ২০ শতাংশ। ঠিক উল্টোটা হবে রাতে। অর্থাৎ সূর্যাস্তের পর ব্যবহার হওয়া বিদ্যুতের জন্য গুনতে হবে অতিরিক্ত ২০ শতাংশ টাকা ।

বিদ্যুতের দাম পরিবর্তন নিয়ে একেবারে নতুন নিয়ম আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। বিদ্যুৎ মন্ত্রক জানিয়েছে এবার দেশে নতুন বিদ্যুতের নিয়ম আসবে। যার লাভ তুলতে পারবে সাধারণ মানুষ। কেন্দ্রের নয়া (Day and night different electricity rates) পরিকল্পনায় দিনে রাতে আসবে আলাদা ইলেকট্রিক বিল। সরকার মনে করছে, এর ফলে পিক সময়ে গ্রিডের উপর চাহিদার চাপ কমবে। ফলে গ্রিডের ক্ষমতা বাড়বে! পাশাপাশি 2030 সালের মধ্যে 60 শতাংশ পুনর্নবীকরণ যোগ্য শক্তির থেকে সংগ্রহ করার লক্ষ্য অর্জনেও এই পরিকল্পনা সহায়ক হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

Click here to download this notice – from serial no 203

Day and night different electricity rates
Day and night different electricity rates

Click Here to download this”Central Government Amends Electricity (Rights of Consumers) Rules, 2020 by Introducing Time of Day (ToD) Tariff and Simplification of Smart Metering rules”

প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, 2024 সালের এপ্রিল থেকে কমার্শিয়াল ও ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল খাতের গ্রাহকদের জন্য (Day and night different electricity rates) নতুন শুল্ক লাগু হবে। এর এক বছর পরে কৃষি খাত ছাড়া অন্য বেশিরভাগ খাতের গ্রাহকদের উপরও এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে বলে জানানো হয়েছে। সরকারের বক্তব্য, চলতি গ্রীষ্মে যে প্রবণতা দেখা যাচ্ছে, তাতে স্বস্তির খোঁজে সন্ধ্যায় বাড়ছে এসি এবং কুলারের ব্যবহার। ফলে বিদ্যুৎ গ্রিডগুলির উপর বাড়ছে চাপ। অতিরিক্ত চাপ টানতে না পেরে হচ্ছে লোডশেডিং। এই বাঁধনহারা বিদ্যুৎ ব্যবহারে লাগাম টানতেই এই সিদ্ধান্ত।

Day and night different electricity rates { সরকারি এই নিয়মে কাদের লাভ হবে ও কাদের খরচ বেড়ে যাবে? }

Day and night different electricity rates
Day and night different electricity rates
যে বাড়িগুলোতে দিনের বেলায় বিদ্যুতের ব্যবহার বেশি। তাঁরা লাভবান হবেন।
অনেক পরিবারই দিনের বেলা তাদের ওয়াশিং মেশিন এবং ডিশ ওয়াশারের মতো জিনিস ব্যবহার করে। তাঁরা ইলেকট্রিক বিলে খরচ কমাতে পারবেন।
যারা দিনের বেলায় এসি ব্যবহার করেন তাঁদের ইলেকট্রিক কমবে!
যারা রাতের বেলায় এসি ব্যবহার করেন তাঁদের ইলেকট্রিক বাড়বে!
Day and night different electricity rates

কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ মন্ত্রী আর কে সিং এক বিবৃতিতে বলেছেন, “যেহেতু সৌরশক্তি সস্তা, তাই দিনের বেলায় বিদ্যুতের ব্যবহারের সময় শুল্ক কম হবে, তাই গ্রাহকরা এতে উপকৃত হবেন।”

কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎমন্ত্রী আর কে সিং এক বিবৃতি জারি করে জানিয়েছেন, কেন্দ্রের লক্ষ্য ২০৩০ সালের মধ্যে জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার কমিয়ে অন্তত ৬৫ শতাংশ অ-জীবাশ্ম জ্বালানি থেকে উৎপন্ন বিদ্যুৎ ব্যবহার করা। যার ফলে বাতাসে কার্বনের নির্গমন কমানো যায়। পরিবেশকে বৈশ্বিক উষ্ণায়ন-সহ অন্যান্য বিপদ থেকে রক্ষা করার স্বার্থে ২০৭০ সালের মধ্যে কার্বনের শূন্য নির্গমনের লক্ষ্যমাত্রা স্থির হয়েছে।

Day_and_night_different_electricity_rates
Day_and_night_different_electricity_rates

AC(Air Condition)- এর ব্যবহারের ফলে বাতাসে ব্যাপক পরিমাণে কার্বন মিশে যায়। যেহেতু এসি ব্যবহার প্রচুর পরিমানে বেরেছে তাই এই নতুন নিয়ম আনা হচ্ছে! নয়া নীতিতে অতিরিক্ত বিল (Day and night different electricity rates) এড়াতে রাতে এসি কম ব্যবহার হলে কার্বন নির্গমনের মাত্রা কমবে। নয়া নিয়মে দিনের বেলায় সৌরশক্তি থেকে উৎপন্ন বিদ্যুৎ পাঠানো হবে ঘরে ঘরে। এই বিদ্যুৎ উৎপাদনে খরচ অনেক কম। তাই মিলবে স্বস্তি। রাতের বেলায় ব্যবহার হবে নন-সোলার, অর্থাৎ তাপবিদ্যুৎ, জলবিদ্যুৎ এবং গ্যাস থেকে তৈরি বিদ্যুৎ। সৌরশক্তির তুলনায় এই বিদ্যুৎ তৈরিতে খরচ বেশি হওয়ায় অতিরিক্ত বোঝা চাপবে দেশবাসীর উপর।

বিদ্যুৎ (ভোক্তার অধিকার) সম্পর্কিত নিয়মনীতি ২০২০’র দুটি সংশোধন আনল কেন্দ্রীয় সরকার স্মার্ট মিটারের ব্যবহার এবং দিনের ভিন্ন ভিন্ন সময়ে বিদ্যুৎ চাহিদার ক্ষেত্রে এই সংশোধন কার্যকর হবে

বিদ্যুতের বর্তমান মূল্য তালিকায় দুটি পরিবর্তন এনেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এজন্য বিদ্যুৎ(ভোক্তার অধিকার) সম্পর্কিত ২০২০ সালের নিয়মনীতিরও সংশোধন করা হয়েছে। পরিবর্তন দুটি হল টাইম অফ ডে(টিওডি) সম্পর্কিত মূল্য তালিকা এবং স্মার্ট মিটার ব্যবস্থাকে আরো বাস্তবসম্মত করে তোলা।


     প্রথম পরিবর্তনের বিষয়টিতে বলা হয়েছে, যে সারাদিন ধরে বিদ্যুৎ ব্যবহারের মাশুল একই না রেখে দিনের কোন কোন সময়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হচ্ছে, তার ওপর ভিত্তি করে বিদ্যুতের মূল্য বা মাশুল নির্ধারণ করা। দিনের যেসময়ে সূর্যের আলো পাওয়া যায় সেই সময়ে বিদ্যুতের মাশুল স্বাভাবিকের তুলনায় ১০ থেকে ২০ শতাংশ কম ধার্য করা হবে।

অন্যদিকে, যেসময়ে বিদ্যুতের চাহিদা ও ব্যবহার থাকে সর্বোচ্চ মাত্রায় সেই সময় বিদ্যুৎ ব্যবহারের জন্য মাশুল দিতে হবে স্বাভাবিকের থেকে ১০-২০ শতাংশ বেশি। যেসমস্ত শিল্প ও বাণিজ্য প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ ব্যবহারের চাহিদা রয়েছে অনেক বেশি সেখানে এই টিওডি মাশুল ধার্য করা হবে। এটি চালু হবে ১ এপ্রিল ২০২৪ থেকে।

আবার, কৃষি ছাড়া অন্যান্য ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য বিদ্যুতের এই নতুন মূল্য তালিকা ধার্য হবে ১ এপ্রিল ২০২৫ থেকে। স্মার্ট মিটারের চাহিদা রয়েছে এধরণের ক্রেতা ও ভোক্তাদের ক্ষেত্রে স্মার্ট মিটার বসানোর পরে পরেই টিওডি টারিফ ধার্য করা হবে।

কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ ও নতুন এবং পুনর্নবীকরণ জ্বালানী মন্ত্রী শ্রী আর কে সিং জানিয়েছেন, যে টিওডি ব্যবস্থাটি ক্রেতা বা ভোক্তাসাধারণ এবং সার্বিকভাবে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা উভয়ের ক্ষেত্রেই অনুকূল বলে তিনি মনে করেন। তিনি আরো বলেছেন যে, টিওডি-র প্রযুক্তি তথা যান্ত্রিক ব্যবস্থা পুনর্নবীকরণযোগ্য জ্বালানীর উৎসগুলির মধ্যে এক উন্নততর সম্বন্বয় গড়ে তুলবে। এর ফলে শক্তি তথা জ্বালানীর ক্ষেত্রে দেশের সার্বিক রূপান্তর প্রচেষ্টাও বিশেষভাবে উৎসাহিত হবে বলে তাঁর ধারণা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here