Uncategorized

নিয়োগ-বিধি বদল, আর্থিক সুবিধাও বাড়ছে শিক্ষকদের

এক সঙ্গে অনেকগুলো সুখবর বেড়িয়ে আসছে শিক্ষকদের জন্য।একদিকে যেমন নিয়োগের ক্ষেত্রে পুরাতন পদ্ধতিতে কিছু পরিবর্তন করা হচ্ছে বলে জানা যাচ্ছে,অপর দিকে আবার প্রাথমিক, sskএবং msk সহ বিভিন্ন শিক্ষকদের একদিকে বেতন বৃদ্ধি এবং পে প্রটেকশন নিয়ে আপডেট এসেছে।

প্রথমে আসা যাক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া কিছু পরিবর্তন হচ্ছে সেই খবরটার দিকে। আগামীদিনে যাতে প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি অবধি শিক্ষক নিয়োগে সরকারকে বিপাকে পড়তে না হয়, সে জন্য নিয়োগ প্রক্রিয়ার সিস্টেমটাকে বদলে ফেলা হচ্ছে। চূড়ান্ত মেধা-তালিকায় আর ওয়েটিং লিস্ট থাকবে না।

কোন স্কুলে কত শুন্য পদ সৃষ্টি হচ্ছে তা এবার সরাসরি অনলাইনে আপলোড হয়ে যাবে। আলাদা করে বিদ্যালয় পরিদর্শক (ডিআই), স্কুলশিক্ষা অধিকরণ (ডিএসই) বা এসএসসি-র ভূমিকা থাকবে না।

এবং এই নিয়ম পরবর্তী নিয়োগ প্রক্রিয়ার আগেই যাতে কার্যকরী করা যেতে পারে তার জন্য মন্ত্রিসভার অনুমোদন চাওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে।

এবার আসা যাক পে প্রটেকশন বিষয়ে, শিক্ষকরা ট্রান্সফার নিলে বা নতুন পরীক্ষার মাধ্যমে নিজের বাড়ির কাছাকাছি স্কুলে  যোগদান করলে তাঁরা অনেকে  যে বেতন পাচ্ছিলেন তার থেকে অনেক কম বেতনে তাঁরদেরকে আবার চাকরি শুরু করতে হচ্ছিল এতে তাঁদের অনেকের প্রায় 15 থেকে 20 হাজার মাসিক লস হচ্ছিল। সরকার জানিয়েছে যে এবার তাঁরা পে প্রটেকশন পাবেন ফলে নতুন স্কুলে যোগদান করলেও তাঁরা বর্তমানে যে বেতন পাচ্ছিলেন সেই বেতন ই পাবেন ।

শিক্ষকদের জন্য আরও সুখবর শোনান শিক্ষামন্ত্রী।এমএসকে-এসএসকে সহায়ক ও সম্প্রসারকদের পার্শ্বশিক্ষকদের মতো শর্তাবলি মেনে সমহারে ভাতা ও যোগ্যতা-বৃদ্ধির ব্যাপারে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। কয়েক দিনের মধ্যেই ঘোষণা করা হবে।সম্ভবতঃ আজ একটা মিটিং আছে সেখানে কিছু বেতন বৃদ্ধির কথা উঠে আসতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।কিছু আপডেট আসলে তা আপনাদেরকে জানানো হবে।

এসএসকে-র সহায়ক ও এমএসকে-র সম্প্রসারকরা মাসে যথাক্রমে ৫,৫৫৪ ও ৮,৯৩০ টাকা ভাতা পান।অপর দিকে প্রাথমিক ও উচ্চপ্রাথমিকে পার্শ্বশিক্ষকরা ১০ ও ১৩ হাজার টাকা ভাতা পান। ফলে তাদের যে বেতনের ফারাক সেটা কমে আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।

প্রাথমিক শিক্ষকরা যোগ্যতা মেনে পর্যাপ্ত গ্রেড-পে না পাওয়ায় যে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন, তা মুখ্যমন্ত্রীও অবগতও বলে মেনেছেন এবং তাঁর সম্মতিতেই প্রাথমিক  শিক্ষকদের মাদ্রাসার শিক্ষকদের সমহারে সংশ্লিষ্ট লক্ষাধিক শিক্ষক-শিক্ষিকাকে গ্রেড-পে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন মন্ত্রী।

আবার অপর দিকে প্রাইমারি শিক্ষকরা সর্বভারতীয় বেতন কাঠামো pb4 pay in pay band 9300-34800 gp 4200 দাবি করে আসছেন।এখন দেখার বিষয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কোন বেতন স্কেল দেওয়া হয়।

যদিও তাঁরা মাদ্রাসা স্কেল পাই তাহলে pb3 pay in pay band 7100 – 37600 gp 3200 ।

এখন gp কিছু পরিবর্তন ও হতে পারে সেটা 3200,3600,3900,4100 এর মধ্যেও হতে পারে বলে জানা যাচ্ছে।

যদি আপনি gp 3200,3600,3900 দিয়ে আপনার বর্তমানে বেতন থেকে কত বেতন বৃদ্ধি পাবে হিসাব করতে চান তাহলে এখানে ক্লিক করুন।

আপনাদের সুবিধার জন্য আগে থেকে একটা আনুমানিক হিসাব করে রাখা হয়েছে সেখানে বর্তমান বেতনের তুলনায় কতটা বেতন বৃদ্ধি হল তার একটা আনুমানিক ধারণা আপনি পাবনে গ্রেড পে ৩২০০,৩৬০০,৩৯০০,৪১০০ ধরে। সেই বেতন হিসাব করতে এখানে ক্লিক করুন

****ধন্যবাদ****

SHARE THIS NEWS TO YOUR FRIEND

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *