[ BANK ACCOUNT ] যত টাকাই থাকুক, ব্যাঙ্ক ভরাডুবি হলে ১ লক্ষ টাকার বেশি দায় নেবে না ব্যাঙ্ক !!

কিছুদিন ধরেই বেশ কিছু ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছে এবং সেখানে দেখা যাচ্ছে যে, অ্যাকাউন্টে যত টাকাই থাক, ভরাডুবি হলে একলক্ষ টাকার বেশি দায় নেবে না ব্যাঙ্ক। পাসবুকে স্ট্যাম্প মেরে ব্যাঙ্কের তরফে সেকথা জানিয়েও দেওয়া হচ্ছে গ্রাহকদের।

 

bank return only 1 lakh imageস্ট্যাম্পে কী লেখা আছে???

যে স্ট্যাম্পটি ভাইরাল হচ্ছে, সেই স্ট্যাম্পে লেখা আছে যে,ব্যাংকে আমানতগুলি ডিআইসিজিকের  সাথে বীমা করা হয় এবং যদি ব্যাংকটি লিকুইডেশনে গেলে,তবে ডিআইজিজিআইসি প্রতিটি আমানতকারীকে অর্থ দেওয়ার জন্য বাধ্য থাকে,লিকুইডেটরের মাধ্যমে।এমন পরিস্থিতিতে গ্রাহকরা দুই মাসে মাত্র এক লাখ টাকা পাবেন।

দেশের সবচেয়ে বড় বেসরকারি ব্যাঙ্কের পাসবুকে এমনই স্ট্যাম্প পড়ে যাচ্ছে। তা দেখে কপালে চিন্তার ভাঁন্জ গ্রাহকদের । ব্যাঙ্কের বক্তব্য, RBI এর নির্দেশ মেনেই গ্রাহক সচেতনতায় এই পদক্ষেপ।RBI তার বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে যে সমস্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক, ছোট ফিনান্স ব্যাংক এবং পেমেট ব্যাংকগুলি গ্রাহকদের পাসবুকের প্রথম পৃষ্ঠায় এই তথ্য সরবরাহ করতে হবে।

 

What is the maximum deposit amount insured by the DICGC?
Each depositor in a bank is insured upto a maximum of Rs.1,00,000 (Rupees One Lakh) for both principal and interest amount held by him in the same capacity and same right as on the date of liquidation/cancellation of bank’s licence or the date on which the scheme of amalgamation/merger/reconstruction comes into force.

 

একটি উদাহরণ দিয়ে যদি বিষয়টি দেখা যায় :::—

 

ধরুন আপনার একটি ব্যাঙ্কে অ্যাকাউন্ট রয়েছে এবং প্রিন্সিপাল এবং সুদ সহ ১০ লক্ষ টাকা রয়েছে তাতে। যদি  কোনও কারণে ব্যাংক দেউলিয়া হয়ে যায় এবং কোণও কারণে, যদি ব্যাঙ্ক আমানতকারীদের অর্থ প্রদানের মতো অবস্থানে না থাকে তাহলে  সেই ক্ষেত্রেও সেই ব্যাঙ্ককে আপনাকে  কমপক্ষে এক লাখ টাকা দিতে বাধ্য থাকিবে। যদিও ১ লক্ষ টাকারও বেশি পরিমাণ ১০ লক্ষ জমা ছিল  তার সুরক্ষার কোনও গ্যারান্টি নেই। কিন্তু হঠাৎ করে  এখন কেন এই নোটিশ বা পাসবই এই রকম স্ট্যাম্প ?? যতটুকু জানতে পারা গিয়েছে যে, তৎকালীন পিএমসি ব্যাঙ্ক এর যে কেলেঙ্কারি সামনে এসেছে সেখানে লক্ষ লক্ষ আমানতকারীর টাকা অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে । ফলে বড় বড় বেসরকারি ব্যাঙ্ক গুলি এখন ঐ নোটিশ তাঁদের ব্যাঙ্কের পাস বইয়ে দিয়ে দিচ্ছেন। যদিও এই নোটিশটি ২০১৭ সালে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সার্কুলার মোতাবেক বলে জানা গিয়েছে । 

 

কিন্তু দাঁড়ান এত চিন্তিত হবার এত কারণ নেই !!!

কারণ ভারতীয় ব্যাঙ্কের  গ্রাহক নিরাপত্তা এখনও পর্যন্ত যথেষ্টই আঁটোসাঁটো। কারণ বিগত দশক ধরে সেই রকম কোণও বড় ব্যাংকিং পরিষেবা সেই ভাবে ভেঙ্গে পড়েনী। তাই যখনই আমানত করবেন ভালো ব্যাঙ্কে করবেন। এবং তার আগে সেই ব্যাঙ্কের সম্পর্কে ভালো ভাবে তথ্য যাচায় করে নেবেন। RBI LICENSE  আছে এমন ব্যাঙ্কেই নিবেশ করবেন।

 

ইতিমধ্যেই HDFC BANK এর তরফে একটি CLARIFICATION  জারি করা হয়েছে সেখানে তারা জানিয়েছেন যে, RBI এর নির্দেশ মত তারা পাস বইয়ে স্ট্যাম্প দিয়েছে । ২০১৭ সালের RBI এর নোটিশটি দেখতে এখানে ক্লীক করুন ।

 

HDFC BANK CLARIFICATION NOTICE :::— 

hdfc bank clarification

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here